1. info@banglanewstelevision.live : bangla news television : bangla news television
  2. doinikajkerunmocon@gmail.com : Emon Khan : Emon Khan
  3. admin@www.banglanewstelevision.live : বাংলা নিউজ টেলিভিশন :
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৪৬ অপরাহ্ন

বাল‍্যবিবিবাহ যেনো লাগামহীন ঘোড়া!

বাংলা নিউজ টেলিভিশন-
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট, ২০২২
  • ২৪ বার পড়া হয়েছে

মাসুদ চৌধুরী সাঈদ, স্টাফ রিপোর্টারঃ বাল‍্যবিবাহ যেনো লাগামহীন ঘোড়া, ছুটছে তো ছুটছেই। আইন-প্রশাসন এতো ততপর থাকার পরও থেমে নেই বাল‍্যবিয়ে নামের অভিশাপ। ইউনিয়ন কাজীরা কৌশলে জন্ম নিবন্ধন ছাড়াই বিয়ের কাজ শেষ করে। উভয় পক্ষকে বলা হয়, আঠারো পূর্ন হলে কাগজ পাবেন। কারন, কাগজ গোপন রাখে আঠারো পর্যন্ত। এই শর্তে উভয় মেনে নিয়ে আত্মীয়তা পাকা করে ঘর-সংসার শুরু করে দেয়। এতে কাজী হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা। এখানেই শেষ নয়। কাজী যে বিয়ে ফেরত দেয় তারা সোজা চলে যায় কোর্টে। কিছু অসাধু আইনজীবি আইন না বুঝে আইনকে বৃদ্ধাঙ্গল দেখিয়ে সুযোগ মতো কোর্ট এভিডেবিট করে কোর্ট ম‍্যারিজ বলে চালিয়ে দিচ্ছে। উভয় পক্ষকে বলে দেয় বিয়ে হয়ে গেছে। যাও সংসার করে খাও। তবে কারো কাছে বলা যাবেনা এইখান থেকে বিয়ে পড়ানো হয়েছে। আর কৌশলে কামিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা। এভাবেই আইনে কাছে ধরা পরেছে মানিকগঞ্জে ঘিওর উপজেলার বড়টিয়া ইউনিয়নে। রবিবার রাতে সংবাদ পেয়ে ঘিওর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উপস্থিত হন। ইউএনও উপস্থিতি টের পেয়ে কাজীসহ সকলে পালিয়ে গেলেও বরকে আটক করা হয়। আটককৃত বরকে ভ্রাম‍্যমান আদালতে ৭ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন উপজেলা ইউএনও মোঃ হামিদুর রহমান। দণ্ডপ্রাপ্ত হলেন, উপজেলার বড়টিয়া ইউনিয়ন মৌহালি গ্রামের মৃত সাইদুর রহমানের পুত্র শহিদুল ইসলাম (২৬)। কনে বড়টিয়া ইউনিয়নে ১ স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীর (১৩) বিয়ের প্রস্তুতি চলছিল। ঐসময় ইউএনও নিজেই কয়েকজন পুলিশ নিয়ে মেয়েটির বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেন। টের পেয়ে সে সময় বরের মা-বাবা, আত্নীয় স্বজন ও কাজী পালিয়ে যান। তবে বর শহিদুল ইসলামকে আটক করে পুলিশ। ইউএনও মোঃ হামিদুর রহমান বলেন, শহিদুল ইসলামের সঙ্গে মেয়েটির বিয়ের প্রস্তুতি চলছিলো। বরপক্ষ বিকেলে কনের বাড়িতে উপস্থিত হয়। এলাকাবাসীর কাছে বাল্যবিবাহের খবর পেয়ে বড়টিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় কনের বাড়িতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল আলম রওশন বলেন, এই বাল্যবিবাহ বন্ধ হওয়ার পাশাপাশি বরের সাজা হয়েছে। এখানে শেষ নয়। কনে পক্ষেকে মুচলেকা দেওয়ায় অন্য অভিভাবকদের জানিয়ে দেওয়া হবে। অবশ‍্যই আমার ইউনিয়নে বাল‍্যবিয়ে হতে দেওয়া যাবেনা। সেই সাথে মাদকমুক্ত ইউনিয়ন গড়ার প্রত‍্যাশী। সাজাপ্রাপ্ত বরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© বাংলা নিউজ টেলিভিশন মিডিয়া লিমিটেড-২০২২ (দৈনিক বাংলার সংগ্রাম পত্রিকার একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান) সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট