1. info@banglanewstelevision.live : bangla news television : bangla news television
  2. doinikajkerunmocon@gmail.com : Emon Khan : Emon Khan
  3. admin@www.banglanewstelevision.live : বাংলা নিউজ টেলিভিশন :
রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৪৬ অপরাহ্ন

আদালতে হাজির হয়ে ক্ষমা চাইলেন ওসি।

বাংলা নিউজ টেলিভিশন -
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন, ২০২২
  • ৩১ বার পড়া হয়েছে

নয়ন ঘোষ,চাপাইনবয়াবগঞ্জ থেকে- একটি চেক জালিয়াতির মামলায় ওয়ারেন্ট তামিল না করায় আদালতে হাজির হয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন রাজশাহী মহানগরীর চন্দ্রিমা থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) এমরান হোসেন। পরে আদালত ভবিষ্যতে এমন কর্মকাণ্ড না করার জন্য সতর্ক করে ক্ষমা করেন ওসি এমরান হোসেনকে। বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) চাঁপাইনবাবগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে ওয়ারেন্ট তামিল না করার কারন ও তার অগ্রগতি তুলে ধরেন ওসি।

সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. হুমায়ুন কবীর আদালত পরিচালনা করেন। এর আগে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হুমায়ুন কবীরের আদালত চেক জালিয়াতির একটি মামলায় আসামির বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট জারি করে। পরে দীর্ঘ পাঁচ মাসে চারটি ওয়ারেন্টের তারিখ অতিবাহিত হলেও ওয়ারেন্ট তামিল না করায় আদালত ওসি এমরান হোসেনকে আদালতে হাজির হয়ে কারন দর্শানোর নির্দেশ প্রদান করে।

এতে আদালতের আদেশ পাওয়ার পর চন্দ্রিমা থানার ওসি আদালতে সশরীরে উপস্থিত হয়ে ওয়ারেন্টের বিষয়ে ব্যাখ্যা প্রদান করে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেন ওসি এমরান হোসেন। এসময় আদালত ওসিকে সতর্ক করে ক্ষমা করেন। এছাড়াও ভবিষ্যতে এ ধরনের কর্মকাণ্ড না করার জন্য সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হুমায়ুন কবীর।

জানা যায়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গত ২০২১ সালের ১৯ জুলাই একটি চেক জালিয়াতির মামলা হয়। পরে আদালত চলতি বছরের ০৮ ফেব্রুয়ারী আসামীর বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যুর আদেশ দেয়। যা ০৯ ফেব্রুয়ারী ইস্যু করা হয়। ওয়ারেন্ট ইস্যুর পর চারটি ধার্য তারিখ বা ০৫ মাস পেরিয়ে গেলেও মামলার ওয়ারেন্ট অনুয়ায়ী কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এমনকি কি কারনে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি, তাও আদালতের নিকট ব্যাখা করেনি ওসি। যা আদালত অবমাননার শামিল হিসেবে গণ্য করে আদালত।

এরই প্রেক্ষিতে কেন ওসির বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশ পালন না করার জন্য বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, মর্মে স্বশরীরে হাজির হয়ে কারণ দর্শানোর জন্য ওসিকে নির্দেশ প্রদান করে আদালত। এবিষয়ে চন্দ্রিমা থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) এমরান হোসেন মুঠোফোনে ঢাকা পোস্টকে বলেন, আদালতের নির্দেশে স্বশরীরে হাজির হয়ে ওয়ারেন্ট হওয়া মামলার অগ্রগতি তুলে ধরেছি। পরবর্তীতে মামলাটির বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
বেনাপোলে দু’কোটি টাকার স্বর্ণেবারসহ পাচারকারী আটক ইমাদুল ইসলাম, যশোর জেলা প্রতিনিধি যশোরের বেনাপোল সীমান্ত থেকে ২০টি স্বর্ণের (ওজন ২ কেজি ৩৩৩ গ্রাম) বারসহ হৃদয় হোসেন (২৫) নামের এক পাচারকারীকে আটক করেছে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ডের (বিজিবি) সদস্যরা। শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বেনাপোল সীমান্তের পুটখালী-বালুন্ডা সড়ক এলাকা থেকে স্বর্ণের বারসহ তাকে আটক করে। আটক হৃদয় হোসেন বেনাপোল পোর্ট থানার কাগজপুকুর গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে। খুলনা ২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল তানভীর রহমান পিএসসি জানান, ভারতে স্বর্ণের একটি চালান পাচার হবে, এমন গোপন খবরে, পুটখালীর বালুন্ডা সড়কে অভিযান পরিচালনা করে সন্দেহভাজন হৃদয় নামের ওই পাচারকারীর হাতে থাকা শপিং ব্যাগ সহ তাকে আটক করে। এ সময় তার কাছে থাকা শপিং ব্যাগ তল্লাশি করে ২০টি স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। যার ওজন ২ কেজি ৩৩৩ গ্রাম এবং আনুমানিক মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকার বেশি। অধিনায়ক আরও বলেন, যশোর সীমান্ত দিয়ে কোনো রকমই ঠেকানো যাচ্ছে না স্বর্ণ চোরাচালান। একের পর এক স্বর্ণের চালান আটক করছে বিজিবি। গত আগষ্ট ও সেপ্টেম্বর ২ মাসে ৭টি চালানে প্রায় সাড়ে ১৪ কেজি স্বর্ণ সহ ৮ জন পাচারকারীকে আটক করেছে বিজিবি। যার আনুমানিক বাজারমূল্য প্রায় ১৩ কোটি টাকা। গডফাদাররা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকলেও আস্তে আস্তে তাদের চালানগুলো আটক করে তাদের সর্বশান্ত করে দিবো। তাদের আইনের আওতায় এনে স্বর্ণ চোরাচালান সীমান্ত থেকে নির্মুল করে দিবো। আটককৃত স্বর্ণপাচারকারীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে তাকে বেনাপোল পোর্ট থানায় পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
© বাংলা নিউজ টেলিভিশন মিডিয়া লিমিটেড-২০২২ (দৈনিক বাংলার সংগ্রাম পত্রিকার একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান) সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ওয়েবসাইট নকশা প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট